গাইবান্ধায় ছাড় দেওয়া ২টি আসনেও জিততে পারেনি লাঙ্গল

গাইবান্ধার ৫টি সংসদীয় আসনের মধ্যে জোটগত কারণে জাতীয় পার্টিকে দুটি আসন ছাড় দেয় আওয়ামী লীগ। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন ২টি থেকে আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনীত প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ ছাড়লেও ছাড়েননি স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এ ২টি আসনেই হেরে গেছে লাঙ্গল প্রার্থীরা।

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফরুজা বারী। কিন্তু জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছাড় দেওয়ায় তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। তবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থেকে যান তার মেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী নাহিদ নিগার। তিনি জাতীয় পার্টি (জাপার) প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারীকে ২০ হাজার ১১৯ ভোটে পরাজিত করেছেন। 

অপরদিকে গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে ৩ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনিকে প্রাথমিকভাবে মনোনয়ন দেয় আওয়ামী লীগ। পরে আসন ভাগাভাগিতে জাতীয় পার্টিকে ছাড় দেয় আওয়ামী লীগ। যার কারণে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন তিনি। কিন্তু স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদ্য পদত্যাগ করা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ সরোয়ার কবীরের কাছে ৩ হাজার ১৫৩ ভোটে হেরে যান জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী আব্দুর রশিদ সরকার।

এছাড়া অন্য ৩টি আসনে নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্লাপুর) আসনে বিজয়ী আওয়ামী লীগের উম্মে কুলসুম স্মৃতি পেয়েছেন ৪১ হাজার ১১৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মফিজুল হক সরকার পেয়েছেন ২২ হাজার ৮১২ ভোট। গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনে বিজয়ী আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ (২,০১১৭১); তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী (স্বতন্ত্র) প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী (২৭,৪৫০ ভোট); গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনে বিজয়ী আওয়ামী লীগের মাহমুদ হাসান রিপন পেয়েছেন ১ লাখ ৮ হাজার ২৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফারজানা রাব্বী বুবলী পেয়েছেন ৬৩ হাজার ৩০৮ ভোট।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //