পরিচালনা আমার পেশা ও নেশা: লতা আচারিয়া

লতা আচারিয়া।

লতা আচারিয়া।

লতা আচারিয়া। এ সময়ের মেধাবি নির্মাতা। নির্মাণকাজে যুক্ত আছেন ১০ বছর ধরে। তৈরি করেছেন প্রতিষ্ঠিত শিল্পীদের অসংখ্য মিউজিক ভিডিও। সম্প্রতি শেষ করেছেন দুটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজ। নিজে গান করেন। বাংলা চলচ্চিত্রেও প্লে-ব্যাক করেছেন। তরুণ এই নির্মাতার সঙ্গে বিভিন্ন কাজ নিয়ে কথা বলেছেন মাহমুদ সালেহীন

নির্মাণ কাজে আগ্রহী হলেন কেন?

আমি আসলে ২০০৯ থেকেই মিডিয়াতে কাজ করছি, তখন অ্যাক্টিং মডেলিং করতাম, তার পাশাপাশি গল্প বা ক্রিয়েটিভ আইডিয়া দিতাম, কিন্তু ক্যামেরার সামনে থেকে ক্যামেরার পেছনে কাজ এ বেশি ভালো লাগতে শুরু করে, তারপর আর্ট ডিরেকশন, নাটকের স্ক্রিপ্টিং, এগুলো করা শুরু করলাম, পাশাপাশি গানও করতাম, তাই গানের সার্কেলের মানুষদের সঙ্গেও মেশা হতো, হঠাৎ করেই আমাদের এক বড় ভাইয়ের মিউজিক ভিডিও বানানোর সুজোগ পাই দুটি, তারপর থেকেই ভিডিও বানানোর প্রতি একটা আকর্ষণ হয়ে যায়। ব্যাস তারপর থেকে এখন পর্যন্ত ৮০-৯০টি ভিডিও হবে বানিয়েছি।

বর্তমানে কী কী কাজ করছেন?

বর্তমানে মিউজিক ভিডিও বানাচ্ছি, বিভিন্ন প্রোডাকশন থেকে এগুলো আসছে। সামনে কিছু আসছে নতুন মিউজিক ভিডিও, তার এডিটিং চলছে। আর দুটো স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজ শেষ করলাম। একটার নাম ‘লিংক হবে আরেকটা নয় মাস। লিংক হবে তে অভিনয়ে ছিল শামিম হাসান সরকার, তানিয়া বৃষ্টি। নয় মাস, এ অভিনয়ে ছিল ইরফান সাজ্জাদ এবং তানিয়া বৃষ্টি এবং আরো অনেকে।

পরিচালনা কে কীভাবে উপভোগ করছেন?

আসলে পরিচালনা এখন আমার নেশা এবং পেশা দুটোই হয়ে গেছে। আমার সব কাজ আমার কাছে অনেক স্পেশাল।

নিজের গান নিয়ে কি কাজ করছেন?

আমার নিজের গাওয়া কয়েকটা গান বের হয়েছে। এর মধ্যে একটা মিউজিক ভিডিও করেছিলাম। আর অডিও আছে বাকিগুলোর। ইউটিউবে পাওয়া যাবে। তাছাড়া সিনেমাতে প্লে-ব্যাক করেছি ২-৩টা।

পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বানাতে কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা?

পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বানানো অবশ্যই ইচ্ছা আছে। তবে আরও একটু সময় নিচ্ছি। তবে সুযোগ পেলে অবশ্যই বানাব।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

আসলে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কেউই জানে না, তবে ইচ্ছা আছে আমি সিনেমা বানালে অবশ্যই বাংলাদেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, নারী ব্যবস্থা, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, শিক্ষা ব্যবস্থা সব তুলে ধরেই সিনেমা বানাব। একজন বাংলাদেশি হয়ে বাংলাদেশকে তুলে ধরব, বাকিটা ওপরওয়ালার ওপর নির্ভর করে, কতদূর যেতে পারি।

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh