ইউক্রেনে ‘ছায়া’ যুদ্ধ চালাচ্ছে ন্যাটো : রাশিয়া

ইউক্রেনকে অস্ত্রসাহায্য করে ন্যাটো রাশিয়ার সাথে ছায়াযুদ্ধে নেমেছে। এই অস্ত্রের সাহায্যেই রাশিয়ার সেনার উপর হামলা চালাচ্ছে ইউক্রেন। গতকাল সোমবার (২৫ এপ্রিল) রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ দেশটির জাতীয় টেলিভিশনে এসব কথা বলেছেন। 

তিনি প্রশ্ন করেন, ইউক্রেনে একাধিকবার অস্ত্র সম্ভার ধ্বংস করেছে রাশিয়া। তারপরেও সেখানে অস্ত্র যাচ্ছে কী করে? এর থেকেই স্পষ্ট, ন্যাটো তাদের অস্ত্রের জোগান অব্যাহত রেখেছে।  যুদ্ধ অর্থ যুদ্ধই। 

ইউক্রেন ইস্যুতে সামনে আসা পরমাণু যুদ্ধের হুমকিকে খাটো করে না দেখতে পশ্চিমাদের সতর্ক করে লাভরভ বলেন, বাইরে থেকে পরমাণু লড়াইয়ের একটি আবহ তৈরির চেষ্টা চলছে। রাশিয়া তার মধ্যে ঢুকতে চায় না। 

তিনি আরো বলেন, একটি চুক্তি সইয়ের মধ্য দিয়ে এই যুদ্ধ শেষ হতে পারে। দুই দেশ শান্তি আলোচনা অব্যাহত রেখেছে। তবে চুক্তি সইয়ের সময় দেখতে হবে, কোন দেশের সেনা কোথায় অবস্থানরত।

লাভরভ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির বিরুদ্ধে আলোচনার ভান করার অভিযোগ তুলে তাকে একজন ভালো অভিনেতা বলে মন্তব্য করেন। রুশ শীর্ষ কূটনীতিক বলেন, যদি আপনি মনোযোগ সহকারে দেখেন এবং জেলেনস্কি যা বলেছেন তা মনোযোগ সহকারে পড়েন, আপনি হাজার স্ববিরোধিতা খুঁজে পাবেন।

এদিকে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর মুখ খুলেছেন ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা। তিনি বলেন, রাশিয়ার কথা থেকেই পরিষ্কার, তারা এই যুদ্ধে হার স্বীকার করে নিচ্ছে। তারা পরাজিত হয়েছে।

অপরদিকে ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মূল লক্ষ্য আসলে কী, তারা কি চাইছে যুদ্ধ দীর্ঘস্থায়ী হোক- গতকাল সোমবার (২৫ এপ্রিল) মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনের কিছু বক্তব্যের পর সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে গত রবিবার রাতে তার সংক্ষিপ্ত সফর শেষ করে পোল্যান্ডে লয়েড অস্টিন সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্র দেখতে চায় এই যুদ্ধের পরিণতিতে রাশিয়া সামরিক শক্তির দিক থেকে দুর্বল হয়ে পড়ুক। আমেরিকা দেখতে চায় রাশিয়া এতটাই দুর্বল হয়ে পড়ুক যাতে ইউক্রেনে হামলার মতো কাজ করার সক্ষমতা ভবিষ্যতে তাদের আর না থাকে।

পেন্টাগনের প্রধান বলেন, এই যুদ্ধে তারা (রাশিয়া) এরই মধ্যে তাদের সামরিক ক্ষমতার অনেকটাই হারিয়েছে...আমরা দেখতে চাই দ্রুত সেই দুর্বলতা যেন তারা কাটিয়ে উঠতে না পারে। 

ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে মার্কিন একজন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্য বিস্ময়কর। -ডয়চে ভেলে ও বিবিসি

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //