লাল সবুজে ফ্যাশন

লাল-সবুজ আমাদের প্রিয় রঙ। ডিসেম্বর বিজয়ের মাস। এই মাসজুড়ে সবার মনে দোলা দেয় স্বাধীনতা। পোশাকেও তার প্রভাব পড়ে। লাল-সবুজ রঙের পোশাক পড়ে বের হন অনেকেই। 

ডিসেম্বরের শেষ পর্যন্ত চলতে থাকে এ আয়োজন। বিজয়ের আনন্দ উপভোগ করতে চাই নতুন পোশাক। আর দিবসভিত্তিক পোশাকের ব্যাপারটা আমাদের সংস্কৃতিতে আনেন এ দেশের ফ্যাশন ডিজাইনাররা। 

বোদ্ধারাও মনে করেন, দিবসভিত্তিক পোশাকের ধারাটা চালু থাকা জরুরি। এতে ফ্যাশনের সঙ্গে মানুষের সরাসরি সংযোগ ঘটার পাশাপাশি স্বাধীনতার লাল-সবুজ বসন অঙ্গে জড়ানো হবে। বিজয় দিবস আনন্দের দিন, তাই আমরা পোশাকের মধ্যে সেই আনন্দভাবটা তুলে ধরতে পারি। 

অঞ্জনসের স্বত্বাধিকারী ও ডিজাইনার শাহীন আহম্মেদ জানান,  অঞ্জনস নতুন প্রজন্মকে পোশাকের দিক থেকে করেছে স্বদেশমুখী। আমাদের ডিজাইনের একটা বড় অংশজুড়ে থাকে দেশাত্মবোধের চেতনা। এবারের বিজয় দিবস উপলক্ষে লাল-সবুজের প্রত্যয়ে সে চেষ্টাই অব্যাহত রেখেছি। মূলত ফ্যাশনের ধারা সময়কে ধারণ করা। স্টাইল, স্মার্টনেস, আউটলুকের সামগ্রিক কনসেপ্টে বৈচিত্র্য এলেও বিজয় দিবসের ফ্যাশনে দেশাত্মবোধের ভাবধারাটি প্রাধান্য পায়। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিবারের মতো অঞ্জনস এবারো বিজয়ের পোশাক নিয়ে বিশেষ আয়োজন করেছে। 

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধকালীন পত্রিকার সংবাদের কোলাজ, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক দেয়াল চিত্র ও আমাদের জাতীয় ফুল শাপলা অনুপ্রেরণা হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। আমাদের পতাকার রঙ লাল-সবুজ পোশাক ডিজাইনে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে। শাড়ি, পাঞ্জাবি, মেয়েদের টপস, সালোয়ার-কামিজ এবং টি-শার্ট পাওয়া যাবে। এছাড়া শিশু-কিশোরদের জন্য থাকছে পাঞ্জাবি, শাড়ি, টি-শার্ট, ফ্রক ও সালোয়ার-কামিজ।

নিত্যউপহারের স্বত্বাধিকারী ও ডিজাইনার বাহার রহমান বলেন, বিজয়ের দিনটিতে বাঙালির চলনে-বলেনে, পোশাক-আশাকে দেশপ্রেমের প্রকাশ চোখে পড়ার মতো। ডিসেম্বরে লাল-সবুজ পোশাকের মাধ্যমে স্বাধীনতাযুদ্ধের বীর সেনানীদের প্রতিও সম্মান জানানো হয়। এ ধরনের ঐতিহ্য আর ইতিহাসের কথা মনে রেখে পোশাক পরেন অনেকেই। যদিও শীত বলে ডিজাইনারদের নজর থাকে গরম কাপড়ের দিকে; কিন্তু তাই বলে তো বিজয় বাদ দিয়ে নয়। এ বছরেও সেটার ব্যতিক্রম হয়নি।

তিনি বলেন, লাল-সবুজের আঁচড়ে সাজানো পোশাকগুলো যেন এক-একটি বিজয়োৎসবের পতাকা। টি-শার্ট সব সময়ই তারুণ্যের প্রতীক হিসেবে উঠে এসেছে। মুক্তিযুদ্ধ ও তারুণ্য একে অপরের পরিপূরক হয়ে উঠছে দিন দিন, তাই পোশাক হিসেবে টি-শার্টের থিমগুলোতেও উঠে আসছে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা-সংগ্রামের মতো বিষয়। আমরা আমাদের টি-শার্টের থিমগুলোতে নিয়ে আসার চেষ্টা করছি মুক্তিযুদ্ধকেন্দ্রিক বিভিন্ন কবিতার পঙক্তি, মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্ব ও আত্মত্যাগের মতো আমাদের জাতীয় অহঙ্কারগুলো। 

বিবিয়ানার স্বত্বাধিকারী ও ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, প্রতিবারের মতো এবারও বিবিয়ানার রয়েছে বিজয় দিবসের আয়োজন। মূলত লাল আর সবুজ দুটি রংই প্রাধান্য পেয়েছে। মোটিফ হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের নানা বিষয়কে বেছে নিয়েছে। বিবিয়ানা সব সময়ের মতো এবারো ডিজাইন ভাবনায় দেশীয় ঐতিহ্যকে গুরুত্ব দিয়েছে। এই হাউসে এবার গুরুত্ব পেয়েছে জাতীয় পতাকার নকশায় শাড়ি। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক ডাকটিকিট, কবিতা, ছবি, জাতীয় ফুল শাপলা ও স্মৃতিসৌধ।


মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh