আনসু ফাতি: বার্সেলোনার বর্তমান ও ভবিষ্যতের আশা

আনসু ফাতি

আনসু ফাতি

বার্সেলোনা ছাড়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন লিওনেল মেসি; কিন্তু শেষ পর্যন্ত ছাড়তে পারেননি। ক্লাব বার্সেলোনা চুক্তির শর্তের মারপ্যাঁচে তাকে আটকে দিয়েছে। তবে মেসি চলে গেলেও বার্সেলোনা মেসিশূন্য হবে না। 

এরই মধ্যে যে বার্সা পেয়ে গেছে নতুন এক মেসিকে! হ্যাঁ, সত্যিই তাই। মেসি থাকতেই এক ‘নতুন মেসি’কে আবিষ্কার করে নিয়েছে বার্সেলোনা। তার নাম আনসু ফাতি। বার্সেলোনার সমর্থকরা যাকে আদর করে ‘নতুন মেসি’ বলে ডাকেন। বার্সেলোনা যাকে ঘিরে দেখছে ভবিষ্যতের আশা। ফুটবলবোদ্ধারা দেখছে ভবিষ্যতের আসল মেসির প্রতিচ্ছবি। শুধু ভবিষ্যতের জন্যই নয়, ফাতি বার্সেলোনার বর্তমানেরও আশা। 

সুয়ারেজের জায়গায় ফাতিকেই মেসির আক্রমণ-সঙ্গী বানানোর পরিকল্পনা বার্সেলোনার। এরই মধ্যে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথে হাঁটতেও শুরু করেছেন বার্সার নতুন কোচ রোনাল্ড কোয়েম্যান। 

গত ২৭ সেপ্টেম্বর লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আসল মেসির সাথে নতুন মেসিকে দিয়েই আক্রমণ জুটি গড়েন বার্সা কোচ। আর কোচের সেই প্রথম পরীক্ষাতেই অবিশ্বাস্য সফল হন ফাতি। এতটাই সফল যে, ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচটিতে আসল মেসির বদলে ফাতিই বনে যান সত্যিকারের নায়ক। দলকে ৪-০ গোলের জয় এনে দেয়ার পথে তিনি করেন জোড়া গোল। তাও দলের প্রথম দুইটি গোল করেন ফাতি। 

শুধু কী জোড়া গোল? ম্যাচে বার্সেলোনা যে পেনাল্টি পেয়েছিল, যা থেকে ম্যাচে নিজের একমাত্র গোলটি করেন অধিনায়ক মেসি, সেই পেনাল্টিটিও আদায় করেন ফাতিই। মেসির সাথে জুটি বেঁধেই মেসিকে ছাপিয়ে নায়ক বনে যাওয়া এমন এক তরুণকে ঘিরে বার্সেলোনা আশায় বুক বাঁধতেই পারে। মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই জোড়া গোল, স্বপ্নকেও হার মানার মতো ব্যাপার। 

মৌসুমটি যে ফাতির আলোয় উদ্ভাসিত হতে যাচ্ছে, এ যেন তারই পূর্বাভাস। ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম ম্যাচটিতেই বা শুধু কেন, ফাতি আসলে ভবিষ্যৎ তারকার বার্তা ফুটবল দুনিয়াকে দিয়েছেন নিজের অভিষেক মৌসুমেই। গত মৌসুমে বার্সেলোনা মূল দলের হয়ে অভিষেকের পর থেকে প্রায় প্রতি ম্যাচেই কোনো না কোনো চমক দেখিয়েছেন গিনি-বিসাউয়ে জন্ম নেয়া এই স্প্যানিশ তরুণ। কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেব গড়েছেন একের পর এক রেকর্ড। 

২০১২ সালে মাত্র ৯ বছর বয়সে যোগ দেন বার্সেলোনার যুব একাডেমি ‘লা মেসিয়া’য়। তখন থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ওই ‘লা মেসিয়া’ই ছিল তার ঘরবাড়ি। সেখানেই নিজের অমিয় প্রতিভার সাক্ষর রাখেন। যার পুরস্কার হিসেবে, ২০১৯ সালের ২৫ আগস্ট যুব একাডেমি থেকে সরাসরি ঢুকে পড়েন বার্সেলোনার মূল দলে। রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে ম্যাচটিতে ক্লাব বার্সেলোনার ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে হয়ে যায় তার অভিষেকও। যেদিন তার বয়স ছিল ১৬ বছর ২৯৮ দিন। সেই শুরু। এরপর মাঠে নামলেই গড়েছেন একের পর এক রেকর্ড। 

ওই বছরই ৩১ আগস্ট ওসাসুনার বিপক্ষে ম্যাচে সিনিয়র ক্যারিয়ারে নিজের প্রথম গোলের দেখা পেয়ে যান ফাতি। যে গোলটির মাধ্যমে স্প্যানিশ তরুণ গড়েন বার্সেলোনার ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে লা লিগায় গোল করার রেকর্ড। যেদিন তার বয়স ছিল ১৬ বছর ৩০৪ দিন। এভাবেই একের পর এক টুর্নামেন্টে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে  গোল করার রেকর্ড গড়েন। 

ফাতির রেকর্ড কীর্তির পালা এখানেই শেষ নয়। এ বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি লা লিগার ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে এক ম্যাচে জোড়া গোল করার কীর্তি। তার কাঁধে চেপেই সেদিন লেভান্তের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় পায় বার্সেলোনা। ক্যারিয়ারের শুরুটাই যার এমন স্বপ্নময়, তাকে ঘিরে ভবিষ্যতের বাজি ধরাই যায়।

জয়তু আনসু ফাতি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh