নারী ফুটবলারদের ভবিষ্যৎ কী!

আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার প্রত্যাশা থাকলেও, সেটি এখন আর পূরণ হচ্ছে না বাংলাদেশের নারী ফুটবলারদের। 

এ বিষয়ে বাফুফে সভাপতি বলেন, চলতি ফেব্রুয়ারিতে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। এই সময় অন্তত একটি ম্যাচ খেলার লক্ষ্যে ১৭টি দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও সবাই না করে দিয়েছে! 

ফলে র‌্যাংকিংয়ের বাইরে থাকা মেয়েদের আপাতত র‌্যাংকিংয়ে প্রবেশ করা গেল না। 

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে ফিফা নারী ফুটবল র‌্যাংকিংয়ে প্রবেশ ঘটেছিল বাংলাদেশের। সে সময় সেরা ১০০তে প্রবেশ করেছিল সালমা খাতুনের দল; কিন্তু তিন বছর না পেরুতেই ২০২০ সালের শেষ দিকে নামই নেই বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের। র‌্যাংকিংয়ে ১৪২ দেশের মধ্যেই নেই বাংলাদেশ! নিয়মিত আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেলার কারণেই এমনটি হয়েছে বলে জানা গেছে। 

নারী ফুটবল দলকে র‌্যাংকিয়ে ফিরিয়ে আনতে একাধিক দলের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ম্যাচের আয়োজনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছিল; কিন্তু আমন্ত্রণ জানানো ১৭টি দেশের সবাই বাংলাদেশকে না করে দিয়েছে। ১৫-২৩ ফেব্রুয়ারি সময়ের মধ্যে সম্মতি পেলে যেকোনো একটি দেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পরিকল্পনা ছিল। ফিফার নির্ধারিত সূচিতে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের সবকিছু চূড়ান্ত ছিল; কিন্তু বাফুফের সেই আমন্ত্রণে কোনো দেশই সাড়া না দেয়ায় আশা পূরণ হচ্ছে না নারী ফুটবলারদের। 

এ বিষয়ে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেন, ‘একটু হতাশা নিয়েই বলতে হচ্ছে, মেয়েরা ম্যাচ খেলতে পারছেন না। আমরা অনেক আশা নিয়ে ১৭টি দেশকে নারী ফুটবল উইন্ডোতে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম; কিন্তু কোনো দেশই এতে সাড়া দেয়নি। একে একে সবাই না করে দিয়েছে। সে কারণে আপাতত কোনো ম্যাচই খেলার সম্ভাবনা নেই মেয়েদের’।

করোনা পরিস্থিতিতে এখন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার জন্য কোনো দেশকে রাজি করানো বেশ কঠিন কাজ হয়ে যায়। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এখানে কূটনৈতিক দূরদর্শিতার অভাব থাকতে পারে। নয়তো একসাথে ১৭টি দেশকে না পাওয়ার কোনো কারণ দেখা যাচ্ছে না। 

বাফুফে সূত্রে জানা গেছে, আমন্ত্রণ জানানোর পরও যে দেশগুলো না করে দিয়েছে সেগুলো হলো- মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান, গুয়াম, লাওস, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, বাহরাইন, কম্বোডিয়া, চাইনিজ তাইপে, মরক্কো, কাতার, মালয়েশিয়া, কিরগিজস্তান, মঙ্গোলিয়া ও তাজিকিস্তান। দেশের ফুটবলে এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি।

তুলনামূলক কম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার কারণে মেয়েদের র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের নামই নেই! অথচ এই মেয়েরা বয়সভিত্তিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় কত সাফল্য এনে দিয়েছে। গত বছর হঠাৎই যখন দেখা গেল সাবিনা খাতুনের দলের নাম র‌্যাংকিংয়ে নেই, তখন তো চক্ষু চরকগাছ হওয়ার মতো অবস্থা। গোলাম রব্বানী ছোটনের শীষ্যদের নাম র‌্যাংকিংয়ে উঠাতে হলে বেশি বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে হবে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন মেয়েদেরকে আন্তর্জাতিক ম্যাচের আশা দেখিয়েছেন। মেয়েদের ফুটবলের উন্নতিটা বোঝাতে প্রয়োজন রয়েছে আন্তর্জাতিক ম্যাচের। যে ম্যাচ থেকেই কোন অবস্থানে রয়েছে মেয়েরা সেটি অনেকটাই পরিষ্কার হয়ে যাবে। এক বছরের বেশি সময় ধরে আন্তর্জাতিক ফুটবলের বাইরে রয়েছে দেশের নারী ফুটবলাররা। 

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে নেপালে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়েছিল বাংলাদেশ। এর পরের সময়টাতে একরকম অলস সময় কেটেছে জাতীয় দলের ফুটবলারদের। দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেলার কারণে র‌্যাংকিং থেকে বাদ পড়তে হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh