বিতর্কিত গোলে জয় ব্রাজিলের

ম্যাচ শেষে নেইমারদের উচ্ছ্বাস। ছবি : রয়টার্স

ম্যাচ শেষে নেইমারদের উচ্ছ্বাস। ছবি : রয়টার্স

কোপা আমেরিকায় গ্রুপ ‘বি’ থেকে ইতিমধ্যেই কোয়ার্টার ফাইনালে চলে গেছেন নেইমাররা। লড়াই এখন গ্রুপ শীর্ষে থাকার। রোবের্তো ফিরমিনো ও ক্যাসেমিরোর গোলে কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে দিল ব্রাজিল। কলম্বিয়ার হয়ে গোল করেন লুইস দিয়াজ।

বাংলাদেশ সময় আজ বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) ভোরে রিও ডি জেনেইরোর নিল্তন সান্তোস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচ ২-১ গোলে জিতেছে ব্রাজিল। টানা দুই ম্যাচে কলম্বিয়ার বিপক্ষে ড্র করার পর এবার জিততে পারল তারা। ২০১৪ বিশ্বকাপে এই দুই দলের লড়াই দেখেছিল একটি রেকর্ড। বিশ্বকাপ ম্যাচে সবচেয়ে বেশি- ৫৪ ফাউল। এই ম্যাচেও ছিল ফাউলের ছড়াছড়ি।

 ম্যাচে শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে ব্রাজিল। কোচ রেইনালদো রুয়েদার কথা অনুযায়ী রক্ষণ জমাট রেখে প্রতি-আক্রমণ নির্ভর ফুটবল খেলে কলম্বিয়া। ১০ মিনিটের মাথায় কলম্বিয়াকে এগিয়ে দেন দিয়াজ। পোর্তোর হয়ে খেলা আক্রমণভাগের এই ফুটবলার অসাধারণ দক্ষতায় ব্যাক ভলি করে বল জালে জড়িয়ে দেন। জুভেন্টাসের হয়ে খেলা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সতীর্থ জুয়ান কুয়াদ্রাদোর ক্রস ছিল উইলমার বেরিওসের উদ্দেশে। তবে সেই বল চলে আসে দিয়াজের কাছে। চকিতে শরীর ছুড়ে দেন দিয়াজ। হাওয়ায় ভেসে থেকেই সেই বল ঢুকিয়ে দেন ব্রাজিলের গোলে। কিছু করার ছিল না গোলরক্ষক ওয়েভারটনের।


৭৮ মিনিটে সেই গোল শোধ করেন ফিরমিনো। সেই গোল নিয়ে তৈরি হয় বিতর্ক। নেইমারের গোলমুখি শট রেফারির পায়ে লেগে চলে আসে পরিবর্ত হিসাবে নামা রেনান লোদির কাছে। তার ক্রস থেকে হেডে গোল করেন ফিরমিনো। রেফারির পায়ে বল লাগায় কয়েক মুহূর্তের জন্য থেমে গিয়েছিল কলম্বিয়া। সেই সুযোগেই গোল করে যায় ব্রাজিল।

রেফারির কাছে তাই গোল বাতিল করার আবেদন জানান কুয়াদ্রাদোরা। কলম্বিয়ার গোলরক্ষক অস্পিনা রেফারিকে বোঝানোর চেষ্টা করতে থাকেন। কিন্তু লাভ হয়নি। হলুদ কার্ড দেখতে হয় তাকে। গোলের সিদ্ধান্তই দেন রেফারি।

৯৮ মিনিটের মাথায় আসে জয়ের গোল। নেইমারের কর্নার থেকে গোল করেন ক্যাসেমিরো। শুরু থেকে লড়াই করছিল কলম্বিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে প্রচুর পাস খেলে বলের দখল নেন নেইমাররা। তবে গোলের সামনে এসে খেই হারিয়ে ফেলছিলেন। সেই সময় ফিরমিনোর গোল অক্সিজেন দেয় তাদের।

কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াইয়ের আগে কিছু ফুটবলারকে দেখে নেয়ার চেষ্টা করছেন ব্রাজিল প্রশিক্ষক তিতে। আলিসন বা এদেরসন মোরেজের মতো গোলরক্ষক দলে থাকলেও তিনি নামিয়ে ছিলেন ওয়েভারটনকে। গত ম্যাচে পেরুকে হারানো ব্রাজিল দলের প্রথম একাদশের থেকে কলম্বিয়া ম্যাচে বেশ কিছু পরিবর্তন করেন তিতে। এ দিন তিনি প্রথম একাদশে নিয়ে এসেছিলেন গ্যাব্রিয়াল জেসুস, রিচার্লিসন, ক্যাসেমিরো, এভার্টন রিবেরিয়ো, মারকুইনাসের মতো ফুটবলারকে। 

৪-৪-২ ছকে খেলতে নামা ব্রাজিল দলের আক্রমণের দায়িত্ব ছিল নেইমার ও জেসুসের কাঁধে।

আগের দুই ম্যাচে সাত গোলের পাঁচটিই ব্রাজিল করে দ্বিতীয়ার্ধে। এই ম্যাচে দুই গোল করে পেল টানা তৃতীয় জয়। ৯ পয়েন্ট নিয়ে তারাই শীর্ষে।

৪ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত দুই নম্বরে আছে কলম্বিয়া। ইকুয়েডরের বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্র করা পেরু ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিনে। ২ পয়েন্ট নিয়ে একুয়েডর আছে চারে। সমান পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে ভেনেজুয়েলা।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh