ল্যাম্পার্ডকে বরখাস্ত

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে রেলিগেশনের খরায় থাকা এভারটন শেষ পর্যন্ত কোচ ফ্রাংক ল্যাম্পার্ডকে বরখাস্ত করেছে। গুডিসন পার্কে এক বছরেরও কম সময় দায়িত্বে ছিলেন চেলসির সাবেক এই তারকা মিডফিল্ডার ও কোচ। ব্রিটিশ গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হয়।

২০২২ সালের জানুয়ারিতে রাফায়েল বেনিতেজের স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন ল্যাম্পার্ড; কিন্তু নতুন মৌসুমে তার অধীনে এভারটনের অবনমন হতে হতে টেবিলের ১৯তম স্থানে গিয়ে ঠেকেছে। এই মুহূর্তে তলানির দল সাউদাম্পটনের সাথে সমান ১৫ পয়েন্ট অর্জিত হয়েছে এভারটনের। ক্লাবের ধারাবাহিক ব্যর্থতার জেরে মাসের শুরুতে নিরাপত্তা ঝুঁকি থাকায় গুডিসন পার্কে লিগের ম্যাচ দেখতে যেতে পারেনি ক্লাব পরিচালকরা।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) মৌসুমের আরেক ব্যর্থ দল ওয়েস্ট হ্যামের কাছে ২-০ গোলের পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে এভারটন। শেষ ১২ লিগ ম্যাচে এটি ছিল তাদের নবম পরাজয়। 

এভারটনের মালিক ফরহাদ মোশিরি এর আগে ৪৪ বছর বয়সী ল্যাম্পার্ডের প্রতি সমর্থকদের সহযোগিতা চেয়েছিলেন; কিন্তু ওয়েস্ট হ্যামের বিরুদ্ধে ম্যাচ দেখতে প্রায় এক বছরের বেশী সময় পর মাঠে উপস্থিত হয়েছিলেন মোশিরি। ম্যাচ শেষে তাকে ল্যাম্পার্ড প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে স্কাই স্পোর্টসকে মোশিরি বলেছেন, ‘আমি এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করবো না, এটা আমার একক কোন সিদ্ধান্ত নয়।’

নিজের ভবিষ্যত সম্পর্কে ল্যাম্পার্ড বলেছেন, ‘এ বিষয়গুলো আমার পছন্দের ওপর নির্ভর করে না। আমার দায়িত্ব হলো কাজ করে যাওয়া, নিজের কাজের উপর গুরুত্ব দেয়া। আমি জানি ক্লাবের বর্তমান পরিস্থিতি কি। চেয়ারম্যান বা বোর্ডের কোন সদস্য যদি মাঠে উপস্থিত থাকে তবে এ ধরনের পরিস্থিতি কখনোই কাম্য নয়।’ 

১৯৫৪ সালের পর প্রথমবারের মত প্রিমিয়ার লিগ থেকে ছিটকে পড়ায় শঙ্কায় এভারটন বাধ্য হয়েই বেনিতেজকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে। ১২ মাস আগে ল্যাম্পার্ড এভারটনের দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন। ঐ সময় ক্লাবটি ১৬তম স্থানে ছিল। চেলসির সাবেক এই কোচ প্রাথমিকভাবে ক্লাবটিকে রেলিগেশন থেকে রক্ষা করার কাজই করেছেন। 

গুডিসন পার্কের অতি উৎসাহী কিছু সমর্থকই ক্লাবের প্রাণ। টফিসরা গত মৌসুমের শেষ ছয়টি লিগ ম্যাচের তিনটিতে জয়ী হয়ে নিজেদের অবস্থান রক্ষা করে। এর মধ্যে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিরুদ্ধে ৩-২ গোলের নাটকীয় জয়ের  ম্যাচটি ছিল। 

গত মৌসুমের সাফল্য  ধরে রাখতে পারেনি ল্যাম্পার্ড। যে কারনে এনিয়ে গত সাত বছরে অষ্টম স্থায়ী ম্যানেজারের খোঁজ এখন করতে হচ্ছে এভারটনকে। সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ল্যাম্পার্ডের অধীনে এভারটন ৪৪ ম্যাচে মাত্র ১২টিতে জয়ী হয়েছে। সাবেক বার্নলি বস সিন ডাইচ, লিডসের সাবেক কোচ মার্সেলো বিয়েসলা নতুন কোচের তালিকায় রয়েছে। এছাড়া বর্তমান ওয়েস্ট হ্যাম ও এভারটনের সাবেক কোচ ডেভিড ময়েসকেও আবারো ফিরিয়ে আনা হতে পারে। এই তালিকায় আরো রয়েছেন আলি-ইতিহাদ বস নুনো এস্পিরিতো সান্তো, উল্ফসের সাবেক ও বর্তমানে মেজর লিগ সকারের ক্লাব ডিসি ইউনাইটেডের কোচ ও এভারটনের সাবেক স্ট্রাইকার ওয়েইন রুনি।  

গত মৌসুম শেষে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রিচার্লিসনকে টটেনহ্যামের কাছে ছেড়ে দেবার পর এভারটন ২০ ম্যাচে মাত্র তিনটি জয় পেয়েছে। যে কারনে সম্প্রতি ল্যাম্পার্ড ও বোর্ড সদস্যদের ব্যপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। 

চেলসির সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা ল্যাম্পার্ড চ্যাম্পিয়নশীপের ক্লাব ডার্বির হয়ে কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করেন। প্রাইড পার্কে এক বছরের মেয়াদে তিনি ডার্বিকে চ্যাম্পিয়নশীপের প্লে-অফ ফাইনালে পৌঁছে দিয়েছিলেন। ওয়েম্বলিতে এ্যাস্টন ভিলার কাছে হেরে ডার্বির শিরোপা পাওয়া হয়নি। স্ট্যামফোর্ড ব্রীজে থাকাকালীন ল্যাম্পার্ডের অধীনে চেলসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফিরে আসে। কিন্তু প্রিমিয়ার লিগে নবম স্থানে থাকায় ২০২১ সালের জানুয়ারিতে তাকে চেলসি  বরখাস্ত করে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //