দাঁতের ক্ষতি করে যেসব খাবার

মানুষ এখন দাঁত সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন। ফাইল ছবি

মানুষ এখন দাঁত সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন। ফাইল ছবি

কিছু খাবার আছে যা দাঁতের জন্য বিশেষভাবে ক্ষতিকর, আবার কিছু খাবার বিশেষ উপকারী। আগের চেয়ে অনেক বেশি মানুষ এখন দাঁত সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন। হাসি যাতে সুন্দর হয়, সে ভাবনা আছে। তেমনই আবার অসময়ে দাঁত ব্যথাও এড়াতে চান অনেকে। কিন্তু যত্নে রাখা তো সহজ নয়। তার জন্য চাই দাঁত সম্পর্কে সচেতনতা।

এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে সঙ্কটে ফেলে পছন্দের খাবার। কখন কোন খাবার যে আপনার দাঁতকে বেশি বিপদে ফেলবে, তা তো জানা থাকে না। তার সাথে চিকিৎসকেরা আবার জানাচ্ছেন, তেমন কোনো বিপজ্জনক খাবার যদি বারবার একই দাঁত ব্যবহার করে খাওয়া হয়, তবেও সমস্যা হতে পারে।

নিজের দাঁত যত্নে রাখতে গেলে জেনে রাখা জরুরি, সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে কোন ধরনের খাবার। রইল তারই একটি তালিকা।

আচার

আচার দেখলে মনে হবে কোনো সমস্যা নেই এতে। কারণ খাওয়া হয় অতি সামান্য পরিমাণে। কিন্তু এই খাবারে অতিরিক্ত নুন আর চিনি থাকে। দুয়ে মিলে ক্ষতি করে দাঁতের।

ফলের রস 

এতে তো দাঁতের ব্যবহারই নেই। ক্ষতি করবে তবে কী ভাবে? কিন্তু যে সব ফলের রসে অ্যাসিডের মাত্রা বেশি, তা বেশ ক্ষতি করতে পারে দাঁতের। ফলের রস খাওয়ার পর কুলকুচি বা ব্রাশ করুন।

কফি 

এই পানীয় বিভিন্ন দিক থেকে হয়তো আপনাকে যত্নে রাখে। কিন্তু দাঁতের জন্য মোটেই ভাল নয়। এতে থাকে ট্যানিন। সেই পদার্থ থেকে দাঁতে দাগ পড়তে পারে।আবার এনামেলের ক্ষয় করে। 

হঠাৎ গরম, হঠাৎ ঠান্ডা খাবার

অতিরিক্ত গরম কোনো খাবার যেমন পিৎজা বা শিঙাড়া বা পিঁয়াজুতে কামড় দিয়ে সাথে সাথে যখন আমরা ঠান্ডা পানীয়তে চুমুক দিই, তখনই কিন্তু এনামেলে একটা চুলের চেয়ে সূক্ষ্ম ফাটল সৃষ্টি হয়। হঠাৎ গরম, হঠাৎ ঠান্ডা খাওয়ার ফলে এনামেল কিছুটা প্রসারিত হয় বা বেড়ে যায় ও ফাটল ধরে। তাই গরম খাবারের সাথে ঠান্ডা পানীয় খাওয়ার অভ্যাস বাদ দিন।

কোমল পানীয় 

স্থূলতা বাড়ানোর পাশাপাশি দাঁতেরও মারাত্বক ক্ষতি করে কোমল পানীয়। এই পানীয়গুলোতে অ্যাসিড ও চিনি দুটোই থাকে বেশি, যা দাঁতের ‘এনামেল’য়ের আবরণকে আক্রমণ করে। নিয়মিত এই পানীয় যারা পান করেন, স্বভাবতই তাদের দাঁত ক্ষয় হওয়া, শিরশির অনুভূতি দেখা এবং ‘ক্যাভিটি’ তৈরি হওয়ার আশঙ্কা বেশি।

ক্যান্ডি 

এতেও থাকে প্রচুর পরিমাণে চিনি, যা দাঁতের জন্য ভয়ানক ক্ষতিকর। বিশেষত, চিবিয়ে খাওয়া ক্যান্ডি যেমন- ক্যারামেল, ট্যাফি, লিকোরিস ইত্যাদি খাওয়ার সময় দাঁতে আটকে যায়। ফলে খাওয়া শেষ হয়ে যাওয়ার পরও আটকে থাকা ওই অংশগুলো ‘এনামেল’য়ের আবরণ ক্ষয় করতে থাকে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh