নিয়মিত হলিউড মাতিয়ে যাচ্ছেন এলিজাবেথ ওলসেন

বিশ্ব শোবিজ দুনিয়ার সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্মের কথা যদি বলা হয়, তবে হলিউডের নাম নিতে হবে। পৃথিবীর সব দেশের বিনোদন মাধ্যমের তারকারাই নিজেদের হলিউডে মেলে ধরার স্বপ্ন দেখে থাকেন। আর সারাবিশ্বের রুপালি পর্দার সব অভিনয় শিল্পীদের স্বপ্নের এই হলিউড সবচেয়ে বেশি কার রূপ-রসে রঙিন জানেন? যারা হলিউডকে রাঙাচ্ছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন লাস্যময়ী ও সুন্দরী হলিউডকন্যা এলিজাবেথ ওলসেন।

এলিজাবেথের সাথে হলিউডের পরিচয় খুব ছোট বয়সে। মাত্র চার বছর বয়সে শিশু শিল্পী হিসেবে একটি সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে হলিউডে নাম লেখান এই অভিনেত্রী। এরপর থেকেই টিভি সিরিজ ও চলচ্চিত্রে নিয়মিত কাজের শুরু তার। তবে সেসবই ছিল শিশু শিল্পী হিসেবে এবং সেসব চলচ্চিত্রগুলোতে তার চরিত্রের ব্যাপ্তিও ছিল খুব কম।

গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রগুলোতে এলিজাবেথের পর্দাজুড়ে রাজত্বের শুরুটা হয় ২০ বছর বয়স থেকে। সাইলেন্ট হাউস নামে একটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে এই পথচলা শুরু হয় এলিজাবেথের। বেশ প্রশংসিতও হয় এই চলচ্চিত্রটি। একই বছর পর পর আরো কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। 

২০১১ সালে মার্থা মার্সি মারলিন নামে একটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন এই লাস্যময়ী। থ্রিলারধর্মী এই চলচ্চিত্রটিই হলিউডজুড়ে পরিচিতি এনে দেয় তাকে। তবে এই চলচ্চিত্রটির মাধ্যমে তিনি হলিউডজুড়ে পরিচিতি পেলেও অভিনেত্রী হিসেবে বিশ্বজুড়ে পরিচিতি পেতে এলিজাবেথকে আরো তিন বছর অপেক্ষা করতে হয়েছিল। এই গল্পটি ২০১৪ সালের।

সে বছর এলিজাবেথ ওলসেন অভিনয় করেন সারাবিশ্বের সিনেমাপ্রেমীদের মধ্যে আলোড়ন তোলা চলচ্চিত্র গডজিলায়। মুক্তির সাথে সাথে গডজিলা চলচ্চিত্রটি যেমন অর্জন করে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা, পাশাপাশি এলিজাবেথকেও এনে দেয় বিশ্বজোড়া পরিচিতি। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি এই লাস্যময়ীকে। গডজিলা দিয়ে বিশ্বজুড়ে যে খ্যাতি তিনি অর্জন করেছিলেন, সেই খ্যাতিকে তিনি আরো পাকাপোক্ত করেন বিশ্ব কাঁপানো চলচ্চিত্র অ্যাভেঞ্জার্সের মাধ্যমে।

২০১৫ সালে অ্যাভেঞ্জার্স সিরিজের ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এজ অব আলট্রন’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন এই অভিনেত্রী। মুক্তির পরপরই চরমভাবে ব্যবসাসফল হয় এই আলট্রন। বিশ্বজুড়ে ১ দশমিক ৪ মার্কিন ডলার আয় করে ব্লকবাস্টার তকমা গায়ে লাগায় সিনেমাটি। আর এই সিনেমাটিতে সুপার হিরোইনের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে এলিজাবেথ জানিয়ে দেন সময় এখন তার।

এলিজাবেথও তার এই সফলতা ধরে রাখছেন বেশ নিষ্ঠার সাথেই। কেননা অ্যাভেঞ্জার্স সিরিজের ইনফিনিটি ওয়ার সিনেমাটির মাধ্যমে ২০১৮ সাল মাতিয়েই থেমে যাননি এই অভিনেত্রী।

এরই ধারাবাহিকতায় একই সিরিজের সিনেমা এন্ড গেম দিয়ে ২০১৯ সালেও উজ্জ্বল ছিলেন তিনি। যার রেশ এখনো রয়ে গেছে। আর ২০২১ সালে তো তিনি হলিউডে বিচরণ করেছেন রীতিমতো রানির মতো। যার প্রমাণ বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টিকরা সিনেমা ‘স্পাইডার ম্যান : নো ওয়ে হোম’। স্পাইডার ম্যান সিরিজের এই সিনেমাটি দিয়ে আবারো বিশ্বজয় করেছেন এই লাস্যময়ী।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //