ঘর হয়ে উঠুক স্মৃতিময়

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

অনেকেই আছেন শখের বশে পুরনো জিনিস সংগ্রহে রাখেন। শৈশবের খেলনা, স্কুলের প্রথম ইউনিফর্ম, প্রথম উপহার, বিয়ের শাড়ি, শখের ঘড়ি এমন অনেক কিছুই আমরা স্মৃতি হিসেবে রেখে দিই। আমাদের মধ্যে এমন অনেকে আছেন, যারা ছোট ছোট এই জিনিস স্মৃতি হিসেবে সংগ্রহ করতে ভীষণ ভালোবাসেন। আপনি যদি এমন ব্যক্তি হন, তাহলে জেনে নিতে পারেন কিছু বিষয়। 

পরিপাটি রাখুন শোবার ঘর

শোবার ঘরটি আপনার সবচেয়ে স্বস্তির স্থান। যেখানে আরামে কাটাতে পারেন মূল্যবান সময়। তাই এটিকে পরিপাটি রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শোবার ঘরের তাক বা আলমারিতে গুছিয়ে রাখতে পারেন স্মৃতির সব জিনিস। স্মৃতিবিজড়িত ছবিগুলো ফ্রেমবন্দি করে রাখতে পারেন ঘরের দেয়ালে। এতে ঘরের সৌন্দর্যও ফুটে উঠবে। 

জঞ্জালমুক্ত রাখুন রান্নাঘর

গোছানো রান্নাঘর আপনার মন মেজাজ মুহূর্তেই ভালো করে দিতে পারে। তাই রান্নাঘরকে রাখুন জঞ্জালমুক্ত। রান্নাঘরের ক্যাবিনেটে সব জিনিসের সঙ্গে গুছিয়ে রাখতে পারেন বিয়েতে উপহার পাওয়া এমন সব সামগ্রী, যা আপনার বিশেষ আয়োজনে কাজে লাগে। আবার রান্নাঘরে রাখতে পারেন নিজ সংগ্রহে থাকা শিল্পকর্মের ছোঁয়া। কেননা, রান্নাও তো একটা শিল্প। এতে আপনার সংগ্রহের জিনিসটাও গুছিয়ে রাখা হলো, আবার রান্নাঘরের সৌন্দর্যও বাড়বে কয়েক গুণ। 

একটা কাজ শেষ করে অন্য কাজ শুরু করুন

স্মৃতিগুলো সব সামনে চলে আসে বাড়ি গোছানোর সময়। তাই এক দিনে পুরো বাড়ি গোছানোর পরিকল্পনা না করাই উচিত। এতে বাড়তি ঝামেলায় পড়তে হবে না। কারণ, ঘর গোছাতে গিয়ে এমন সব জিনিস সামনে আসে, যা আপনার সময়কে থমকে দিতে পারে কিছু সময়ের জন্য। তাই একটা একটা করে কাজ নির্বাচন করা ভালো। একটা কাজ শেষে আরেকটা শুরু করুন। অন্তত গত ৫ বছর ব্যবহার করেননি, এমন সব জিনিস একসঙ্গে রাখুন এবং যা বেশি প্রয়োজন, সেটি সামনে রাখুন আর যেটা দরকার নেই, সেটা বাক্সবন্দি করে রাখতে পারেন। 

একটি রেখে অন্যটি বাদ দিন

চাইলেই সবকিছু সব সময় জমিয়ে রাখা সম্ভব হয় না। তাতে জায়গার সংকট দেখা দিতে পারে। তখন প্রয়োজনীয় জিনিসও হয়তো রাখা যাবে না। এ ক্ষেত্রে একটি নিয়ম অনুসরণ করা যেতে পারে। একই রকমের জিনিস একটি রেখে অন্যটি বাদ দেওয়া। কোন স্মৃতিটি রাখা বেশি জরুরি, তা নিয়ে ভাবুন এবং নির্বাচন করুন। এতে পরবর্তী সময়ে মন খারাপ হবে না। তবে ভাবনাটা সময় নিয়ে ভাবা উচিত। তাড়াহুড়ো করা চলবে না। 

ছবি তুলে রাখতে পারেন

ঘর গুছিয়ে রাখা যখন জরুরি, অতীত ধরে রাখা তখন ভীষণ চ্যালেঞ্জিং। চাইলেই আপনি অনেক জিনিস ব্যবহার করতে পারবেন না, ফেলেও দিতে পারবেন না। কেননা এসব জিনিসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে অনেক স্মৃতি। এ ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার করতে পারেন। মানে, যেসব জিনিস একান্তই ফেলে দিতে হবে, সেগুলোর ছবি তুলে রাখা, যা অ্যালবাম করে রেখে দিন। ঘরও গোছানো হবে, আপনার স্মৃতিও রয়ে যাবে। 

জায়গা ঠিক করুন

সবচেয়ে ভালো হয় সংগ্রহের জিনিসগুলোর জন্য আলাদা স্থান নির্বাচন করতে পারলে। একটি আলাদা আলমারি, যেখানে সুন্দর করে গুছিয়ে রাখতে পারেন সংগ্রহের পছন্দের জিনিসগুলো।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //