নতুন বিসিএসেই আরো ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় নতুন বিসিএসে আরো দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। 

এজন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি)। আজ সোমবার (২৭ জুলাই) বিশেষ সভায় নিয়োগবিধি ঠিক করেছে পিএসসি।

এখন তারা এই বিধি তারা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন। পিএসসির একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানিয়েছে, ৩৮ ও ৩৯তম বিসিএসের নন–ক্যাডার তালিকা থেকে মেধার ভিত্তিতে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। কেননা তারা সবকিছুতে পাস করেছেন। পদ না থাকায় নিয়োগ দেয়া যায়নি। কিন্তু মন্ত্রণালয় তাদের নিয়োগ দিতে চায় না। নতুন বিসিএসের মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়ার চাহিদাপত্র এসেছে আমাদের কাছে। 

সূত্রটি আরো জানিয়েছে, আজ নিয়োগবিধি ঠিক করা হয়েছে। এটি এখন জনপ্রশাসনে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

এদিকে ৩৮ ও ৩৯তম বিসিএসের প্রার্থীরা বলছেন, তাদের মধ্য থেকেই নিয়োগ দেয়া হোক নতুন চিকিৎসকদের। ২০১৮ সালের এপ্রিলে ৩৯তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। আর ২০১৯ সালের এপ্রিলে তার ফল প্রকাশ করা হয়। ৩৯তম ব্যাচে উত্তীর্ণদের ভেতর থেকে ৪ হাজার ৭৯২ জন চিকিৎসককে নিয়োগের সুপারিশ করে পিএসসি। 

ওই বছরেরই নভেম্বর মাসে ৪ হাজার ৪৪৩ জনকে স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। একই বিসিএসে উত্তীর্ণ ৮ হাজার ৩৬০ জনকে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের জন্য রাখা হয়। এর মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে সেই ৮ হাজার ৩৬০ জনের মধ্য থেকেই গত মে মাসে ২ হাজার জনকে নিয়োগ দেয়া হয়। 

এই নন-ক্যাডারের তালিকায় আরো ৬ হাজার ৩৬০ জন চিকিৎসক আছেন অপেক্ষায়।

এদিকে গত মাসে ৩৮তম বিসিএসের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এই বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে নন-ক্যাডার হিসেবে নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা চিকিৎসকরাও নিয়োগ পাওয়ার দাবি জানিয়েছেন। নতুন দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগে তাদের অগ্রাধিকার পাওয়া উচিত বলে তারা জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh