শিক্ষক-সম্মান-বেতন একই শিকলে বন্দি

যদি গরুর বদলে ছাগল দিয়ে হাল চাষ করা সম্ভব না হয় তাহলে কৃষক গরু পোষতেই হবে টাকা দিয়ে, এটা স্বাভাবিক। শিক্ষক হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একেক জন মালী যারা তাদের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে বা শিক্ষার বাগানে ফুল ফুটানোর মহান কাজে নিয়োজিত।

ফুল ফুটলে এলাকা সুবাসিত হয়, বাগান সৌন্দর্য্যমণ্ডি হয়, মালি বাগানে নিয়োজিত থেকে বাগানে ফুল ফুটাতে, পারলেই তার স্বার্থকতা। একজন শিক্ষক শিক্ষার্থীকে প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষায় শিক্ষিত করেননা শুধু, তিনি শিক্ষার্থীকে একজন আদর্শ ও আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার নৈতিক দায়িত্ব নেন। বর্তমান আমাদের দেশের শিক্ষকগণ চরম অবহেলার স্বীকার, আর্থিক অনটন লেগেই থাকে জীবনে। এসব শিক্ষকদের কিভাবে শিক্ষার্থীরা আদর্শ মানুষ হিসেবে গ্রহণ করবে?বাগানে ফুল ফুটানোর দায়িত্বে নিয়োজিত মালির যেমন সংসারে পিঁচুটান থাকলে বাগানে ফুল ফুটাতে কষ্ট হবে ঠিক তেমনি শিক্ষকদের আর্থিক অনটন নিয়ে শিক্ষককতার পেশায় নিয়োজিত থাকলে তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করা কি অদৌ সম্ভব?

সভ্যতা বিনির্মাণের মহান কারিগররা অবশ্যই মেধা ও মননে শ্রেষ্ঠ হতে হবে। শিক্ষকদের আর্থিক নিরাপত্তা দিলে এই পেশায় মেধাবীরা আসতো দলে দলে। শিক্ষকদের বেতন, মান সম্মত শিক্ষক আর মান সম্মত শিক্ষা তিনটিই একই শিকলে বন্দী। পৃথিবীর অনেক দেশে শিক্ষকদের যেই সম্মান দেয়া হয় আমাদের দেশে তার কিঞ্চিত পরিমাণও নাই। শিক্ষার মান চাইলে মান সম্মত শিক্ষক এই পেশায় আসতে হবে আর মান সম্মত শিক্ষক পেতে হলে শিক্ষকদের আর্থিক নিরাপত্তা বাড়াতে হবে।

লেখক: সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন
সহকারী অধ্যাপক,
বাকলিয়া শহিদ এন এম এম জে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, চট্টগ্রাম।

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh