করোনায় ‘সালাম সালাম হাজার সালাম' খ্যাত গীতিকারের মৃত্যু

গীতিকার ফজল-এ-খোদা। ফাইল ছবি

গীতিকার ফজল-এ-খোদা। ফাইল ছবি

‘সালাম সালাম হাজার সালাম’ গানের গীতিকার ফজল-এ-খোদা আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ রবিবার (৪ জুলাই) ভোররাত ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।

এর আগে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত বৃহস্পতিবার সকালে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার মৃত্যুর বিষয়টি গীতিকার কবির বকুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গীতিকারের স্ত্রী ও ছেলে দৈনিক ইত্তেফাকের সহকারী সম্পাদক ওয়াসিফ-এ-খোদা ও তার স্ত্রীও করোনা আক্রান্ত। এর মধ্যে তার মা করোনা আক্রান্ত হয়ে একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

‘সালাম সালাম হাজার সালাম’ গানটি বিবিসির জরিপে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাংলা গানের তালিকায় সেরা ২০ গানের মধ্যে ১২তম স্থানে ছিল।

তার লেখা উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে ‘ভালোবাসার মূল্য কতো’, ‘যে দেশেতে শাপলা শালুক ঝিলের জলে ভাসে’, ‘আমি কিছু জানি না’, ‘কলসি কাঁধে ঘাটে যায় কোন রূপসী’, ‘বাসন্তী রং শাড়ি পরে কোন রমণী চলে যায়’, ‘আমি প্রদীপের মতো রাত জেগে জেগে’, ‘ভাবনা আমার আহত পাখির মতো’, ‘প্রেমের এক নাম জীবন’, ‘বউ কথা কও পাখির ডাকে ঘুম ভাঙেরে’ ইত্যাদি।

ফজল-এ-খোদা বেতারে গীতিকার হিসেবে তালিকাভুক্ত হন ১৯৬৩ সালে। এর পরের বছর টেলিভিশনে গীতিকার হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। ঢাকা বেতারের সাবেক এই আঞ্চলিক পরিচালক শিশু-কিশোরদের সংগঠন শাপলা শালুকের আসরের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকও ছিলেন।

ছড়াকার হিসেবে লেখালেখি শুরু করেছিলেন ফজল-এ-খোদা। দেশাত্মবোধক, আধুনিক, লোক সংগীত ও ইসলামিক গান লিখে তিনি প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

১৯৪১ সালের ৯ মার্চ পাবনার বেড়া থানার বনগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এই বরেণ্য গীতিকবি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh