‘আমাকে হত্যার জন্য ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী এক কোটি টাকা দিয়েছে’

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা দাবি করেছেন, তাকে হত্যার জন্য সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদের এক কোটি টাকা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে তিনি এমন দাবি করেন।

কাদের মির্জার ভাষ্য, আমার বিরুদ্ধে আজ যে চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র চলছে, আমাকে গুলি করে হত্যার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে, সেই প্রেক্ষাপটে আমি আপনাদের সঙ্গে কিছু খোলামেলা কথা বলে যেতে চাই। এ সুযোগ হয়তো আমার আর থাকবে না। আমার জীবন অবসান ঘটবে, আমাকে হয়তো কারাগারে নিক্ষেপ করবে। কিন্তু আমার সঙ্গে আল্লাহ আছেন। বাংলাদেশের ৯০ ভাগ মানুষ আমার পক্ষে। আমি কোনো কিছুকে ভয় করি না।

মন্ত্রীর স্ত্রী এখন ক্ষমতাধর। খবর নেন, মন্ত্রীর মন্ত্রণালয় কে চালায় এখন? তিনিই আজ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে আমার এবং আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিয়েছেন। আমাকে হত্যার পরিকল্পনা করেছেন। আমাদের মাননীয় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেবের সহধর্মিণী ইসরাতুন্নেসা কাদের সমস্ত ঘটনা পরিচালনা করছেন। তার নেতৃত্বে সবকিছু হচ্ছে। আজ মন্ত্রী তার স্ত্রীর চাপে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছেন।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি সাহেব ভালো মানুষ। আমি ওনাকে জানিয়েছি- এখানে এসপির নির্দেশে, ওসি এবং তদন্ত কর্মকর্তার নির্দেশে সন্ত্রাসীদের একটা চক্র আমার কর্মীদের বাড়িতে তল্লাশি করছে। আমার মামলাগুলোয় এখন পর্যন্ত একজনকেও গ্রেফতার করা হয়নি। অথচ আমার ২০ জন নেতাকর্মীকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, একরাম চৌধুরীর বউ, তার ছেলে শাবাব ও সম্রাট নামে এক ছেলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমাকে গুলি করে হত্যা করার। আবারও এখানে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার পাঁয়তারা করে যাচ্ছে তারা। আমাকে হত্যার জন্য ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী এক কোটি টাকা দিয়েছে।

এসব ঘটনার সঙ্গে নোয়াখালীর এসপি, ডিবির ওসি, কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি এবং তদন্ত কর্মকর্তা জড়িত। এই চারজনকে প্রত্যাহার করে নেয়ার দাবিও জানান তিনি।

মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেবের স্ত্রী আজ নিজাম হাজারী, একরাম চৌধুরীর সন্ত্রাসীদের দিয়ে আমাকে হত্যার পরিকল্পনা করছেন। আজ ঢাকা থেকে প্রশাসন নিয়ন্ত্রণ করছে জাহাঙ্গীর নামে এক ছেলে। সে লুটপাট করে খাচ্ছে। বিভিন্ন জায়গা থেকে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছে। জাহাঙ্গীর এবং জুয়েল মন্ত্রীর স্ত্রীর নির্দেশে সব করছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh