নাট-বল্টু বায়েজিদকে নিয়ে যা বললেন রাব্বানী

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবিটি আসার পর অনেকে প্রশ্ন তোলেন রব্বানীর সঙ্গে বায়েজিদের কিসের এত সখ্য? আবার কেউ কেউ বলছেন, বায়েজিদ ছাত্রলীগ নেতা। তা না হলে কীভাবে ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে তার ছবি এল। 

এমন সব প্রশ্নের উত্তরে সাবেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী বলেন, পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট বল্টু খুলে টিকটক ভিডিও করা বায়েজিদ তালহারকে ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে ওই ছেলেকে (বায়েজিদ তালহা) চিনিও না। আর চার বছর আগের একটা ছবি নিয়ে যারা এসব মন্তব্য করছে তারা মানসিকভাবে অসুস্থ বলে মনে হয়। আমি রাজনীতি করি। আমার সঙ্গে হাজার হাজার না লাখ লাখ মানুষ ছবি তোলে। তাদের কেউ অপরাধ করলে তো আমি দায়ী না।’

রবিবার (২৬ জুন) পদ্মা সেতুতে যানচলাচল শুরু হয়। ওই দিন সেতুর পার্শ্ব দেয়ালের লোহার কাঠামোর নাট-বল্টু খুলে টিকটক করেন বায়েজিদ তালহা নামের এক যুবক। এ ভিডিও ভাইরাল হলে শুরু হয় সমালোচনা। তাকে ধরতে মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। একই দিন বিকালে রাজধানীর শান্তিনগর এলাকা থেকে তাকে আটক করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি।

পরে বায়েজিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়। গতকাল বায়েজিদকে আদালতে তোলা হলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন শরীয়তপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মো. সালেহুজ্জামান। বায়েজিদের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীতে।

গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘আমাদের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বিএনপির নেতাদের ছবি আছে। তাহলে কেন আমার ছবি নিয়ে এসব কথা বলা হচ্ছে। যারা এগুলো বলছে বা করছে তাদের মানসিক দৈন্য ও সংকীর্ণতা আছে। কেউ ছবি তুললে তার দায়ভার তো আমি নিব না।’

সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ‘এখন মোবাইলের যুগ, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের যুগ। এসময়ে যে কারো সঙ্গে কারো ছবি থাকতে পারে। আর আমরা তো রাজনীতি করি। তবে যে নাটবল্টু খুলেছে, সে অন্যায় করেছে।’

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //