আফগানিস্তান থেকে দূতাবাসকর্মী ফিরিয়ে নিলো ভারত

কান্দাহারে তালেবানের সাথে লড়ছে আফগান পুলিশ ও নিরাপত্তা বহিনী। ছবি : বিবিসি

কান্দাহারে তালেবানের সাথে লড়ছে আফগান পুলিশ ও নিরাপত্তা বহিনী। ছবি : বিবিসি

আফগানিস্তানে তালেবান যখন একের পর এক নতুন এলাকা দখল করে নিচ্ছে, তখন ভারত কান্দাহারে তাদের দূতাবাস থেকে প্রায় ৫০ জন কূটনীতিক ও কর্মকর্তাকে আপদকালীন ভিত্তিতে উদ্ধার করে এনেছে।

কান্দাহার শহর ও তার আশেপাশে নিরাপত্তা পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হওয়াতেই গত শনিবার (১০ জুলাই) রাতে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানায় ভারত।

ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি এয়ারক্র্যাফট গিয়ে কান্দাহার থেকে ওই কর্মকর্তাদের তুলে নিয়ে আসে। তবে বিমানটি তার যাত্রাপথে পাকিস্তানি আকাশসীমা এড়িয়ে গিয়েছিল বলেই সরকারি সূত্রে জানা যাচ্ছে।

আফগানিস্তানে কূটনৈতিক প্রভাব বিস্তারে ভারতের দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টায় এটি একটি বড় ধাক্কা হিসেবেই দেখা হচ্ছে। প্রায় দীর্ঘ দুই দশক ধরে আফগানিস্তানে মোতায়েন থাকার পর মার্কিন সেনা খুব সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে পাকাপাকিভাবে বিদায় নিতে শুরু করেছে। আর তারপরই সে দেশে নিরাপত্তা পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই এ কাজ করা হয়েছে। কারণ কান্দাহারের সীমানায় তালেবান পৌঁছে গেছে। আফগান সেনার সাথে তাদের সংঘর্ষ হচ্ছে। এই অবস্থায় ভারতীয় নাগরিকদের নিরাপত্তার বিষয়টিই সবচেয়ে বড় বলে মনে করে ভারত সরকার। 

তবে তিনি জানিয়েছেন, দূতাবাস এবং কনসুলেট বন্ধ করা হয়নি। স্থানীয় কর্মীরা এখনো সেখানে আছেন। তবে সাময়িক সময়ের জন্য দূতাবাসের কাজ বন্ধ আছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়েছে, আফগানিস্তানে বসবাসকারী ভারতীয়দের উপরেও নজর রাখা হচ্ছে। সংঘাতে তাদের যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে ভারত। ভারতের কাছে খবর, তালেবানের সাথে যোগ দিয়েছে পাকিস্তানে অবস্থিত জঙ্গি গোষ্ঠী লস্কর-ই-তৈয়বা। সে কারণেই ভারতীয়দের সুরক্ষা নিয়ে এতটা চিন্তিত সরকার।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে একটি অ্যাডভাইসারিও জারি করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, খুব প্রয়োজন না হলে আফগানিস্তানে যাওয়া বাতিল করতে। কর্মসূত্রে বা অন্য কারণে যে ভারতীয়রা আফগানিস্তানে আছেন, সম্ভব হলে তাদেরও ফিরে আসার কথা বলেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দিল্লিতে আফগান রাষ্ট্রদূতের সাথে বৈঠক করেছেন দেশের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

আফগানিস্তানে নিযুক্ত ভারতের এক সাবেক রাষ্ট্রদূত গতকাল রবিবার বিবিসিকে বলেছেন, ভারত যে বহুদিন ধরেই সে দেশে পায়ের তলায় শক্ত জমি চাইছে কান্দাহার থেকে কর্মকর্তাদের সরিয়ে আসার পদক্ষেপে তা অবশ্যই হোঁচট খাবে। যে তালেবান এখন কার্যত আফগানিস্তানের দখল নিতে চলেছে, তাদের সাথে ভারতের ‘ওয়ার্কিং রিলেশনশিপ’ বা কাজ চালানোর মতো সম্পর্ক রাখাও যে বেশ কঠিন, তা এই ঘটনায় স্পষ্ট। -বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh