পাকিস্তানে প্রবল তুষারপাতে মৃত্যু বেড়ে ৪৩

পাকিস্তানের বেশ কয়েকটি এলাকায় তীব্র তুষারপাত এবং প্রচণ্ড বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। আর এতে দেশটিতে প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩ জনে।এছাড়া প্রতিকূল এই আবহাওয়ায় বহু মানুষ তাদের বাড়ি-ঘর হারিয়ে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন এবং আহতের সংখ্যাও বাড়ছে দ্রুতগতিতে। 

রবিবার (৯ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা আইএএনএস এবং সংবাদমাধ্যম সিয়াসাত।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় জনপ্রিয় পর্যটন এলাকা মুরিতে ভারী তুষারপাতে ঢেকে যাওয়া গাড়ির ভেতরে আটকা পড়ে কমপক্ষে ২১ জনের প্রাণহানির তথ্য জানানো হয়েছিল। রবিবার মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২ জন হয়েছে বলে জানানো হয়। নিহতদের মধ্যে ৯ জনই শিশু।

পাকিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের (এনডিএমএ) কর্মকর্তা নোমান-উল-হক চীনা বার্তাসংস্থা সিনহুয়াকে এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আগামী দুইদিন এই এলাকায় পর্যটকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এদিকে এক প্রতিবেদনে পাকিস্তানের প্রধান সারির গণমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছে, পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনখোয়ায় গত দুইদিন ধরে প্রবল বৃষ্টিপাত দেখা দিয়েছে। এছাড়া একই প্রদেশের কোথাও কোথাও তুষারপাতের নানা ঘটনাও ঘটছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত শুক্রবার ও শনিবার প্রবল বৃষ্টিপাত ও তুষারপাত সম্পর্কিত ঘটনায় খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে ১০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া বিপর্যয়কর এই আবহাওয়ার মধ্যে পড়ে আরও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

অন্যদিকে তুষারপাত না হলেও প্রবল বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব এবং বেলুচিস্তান প্রদেশ। সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, একটানা চলা এই বৃষ্টিতে পাকিস্তানের এই দু’টি প্রদেশে ১১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া প্রতিকূল এই আবহাওয়ার কারণে আরও বহু মানুষ আহত হয়েছেন।

এদিকে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে স্থানীয় প্রশাসনকে উদ্ধার কাজ ও তল্লাশি অভিযানে সহায়তা করতে দুর্যোগপীড়িত এলাকাগুলোতে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং আধা-সামরিক বাহিনী ফন্ট্রিয়ার কর্পসের সদস্যদের মোতায়েন করেছে পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সরকার। উদ্ধার কাজের পাশাপাশি বিপদাপন্ন মানুষকে তারা ত্রাণ সহায়তার কাজেও অংশ নিচ্ছেন।

সংবাদমাধ্যম সিয়াসাত বলছে, প্রবল বৃষ্টিপাতে বেলুচিস্তানে বহুসংখ্যক বাড়ি-ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর শত শত মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়েছে উদ্ধারকর্মীরা। স্থানীয় প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সদস্যরা যুদ্ধকালীন তৎপরতায় উদ্ধারকাজ পরিচালনা করছেন।

পাকিস্তানের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, রবিবার রাত পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন অংশে প্রবল এই বৃষ্টি ও তুষারপাত অব্যাহত থাকতে পারে। আর তাই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনকেও প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //