চীন-সলোমন দ্বীপপুঞ্জ চুক্তিতে অবস্থান জানাল ভারত

চীন ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া। এই ঘটনায় নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছে ভারতও। দেশটি বলছে, ইন্দো-প্যাসিফিককে সহজ ও উন্মুক্ত রাখতে দিল্লি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি এ কথা জানান।

চীন ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি নিয়ে কোয়াডের বিবৃতির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া এই বিবৃতি দিয়েছে। তবে এটাকে কোয়াডের বিবৃতি বলা যাবে না।

অরিন্দম বাগচি বলেন, আমরা একটা সহজ ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিকের বিষয়ে আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করেছি। আমরা দেশগুলোর আচরণের দিকে নজর রাখছি। বাড়তি বিষয় নিয়ে এখনই কথা বলার সময় আসেনি।

চলতি মাসের শুরুর দিকে চীন ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জ নিরাপত্তা সহযোগিতার বিষয়ে একটি চুক্তি করেছে। এর আওতায় দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জের প্রতিবেশীরা দেশে তাদের দেশে চীনা নৌ ঘাঁটি করতে দেবে।

এই চুক্তিকে বিতর্কিত উল্লেখ করে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

সম্প্রতি চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বেইজিংয়ে এই চুক্তির ঘোষণা দিয়ে বলেন, এই চুক্তির আওতায় সামাজিক শৃঙ্খলা বজায় রাখা, মানুষের নিরাপত্তা রক্ষা, সাহায্য, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা এবং জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষায় সহায়তা করার বিষয়ে হোনিয়ারাকে সহায়তা দেবে চীন।

তবে চীন মহাদেশকে ভয় দেখানোর জন্য সলোমন দ্বীপপুঞ্জে একটি নৌ ঘাঁটি তৈরি করতে চায় বলে দাবি করেছে  অস্ট্রেলিয়া।

এদিকে চীন ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জের মধ্যে নিরাপত্তা চুক্তি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, এই চুক্তি প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশটিতে চীনা সামরিক বাহিনী মোতায়েনের দরজা খুলে দেবে।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা উন্নয়নের বিষয়ে বলেছেন, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ অঞ্চলে চীন যা করছে তা আমরা নিবিড়ভাবে অনুসরণ করছি।

গত ২২ এপ্রিল একটি উচ্চ-পর্যায়ের মার্কিন প্রতিনিধিদল হোনিয়ারা, সলোমন দ্বীপপুঞ্জ পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা প্রধানমন্ত্রী মানসেহ সোগাভার, তার মন্ত্রীসভার দুই ডজন সদস্য ও সিনিয়র স্টাফদের সাথে বৈঠক করেন।

ভারত চীনকে পর্যটন ভিসা দেবে কি না এমন প্রশ্নে অরিন্দম বাগচি বলেন, কোভিড পরিস্থিতির কারণে পর্যটন ভিসা নিয়ে এখনই কথা বলা হচ্ছে না।

তিনি বলেন, আমি মনে করি আপনারা সবাই চীনের শহরগুলোর করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অবগত আছেন। ফলে ভিসা দেয়া নিয়ে এখন কথা বলা উচিৎ হবে না।

সূত্র - এএনআই

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //