টেনিসের ফ্রেঞ্চ ওপেন পুরনো রাজা, নতুন রানি

রাফায়েল নাদাল ও ইগা সিওনতেক

রাফায়েল নাদাল ও ইগা সিওনতেক

করোনাভাইরাস বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনকে স্থবির করে দিয়েছিল। ফলে নির্দিষ্ট সময়ে হতে পারেনি টেনিসের ফ্রেঞ্চ ওপেন। স্থগিত হয়েছিল বছরের দ্বিতীয় এই গ্র্যান্ড স্ল্যাম টুর্নামেন্ট। 

তবে করোনার ভয়াবহতা কমে যাওয়ায় বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন আবার সরব হয়েছে। এ সুযোগে ফ্রেঞ্চ ওপেন কর্তৃপক্ষও সেরে ফেলল নিজেদের টুর্নামেন্ট। 

তবে অসময়ে অনুষ্ঠিত ফ্রেঞ্চ ওপেন সেই পুরনো রাজার মাথায় নতুন করে রাজ মুকুট পরিয়েছে। নোভাক জোকোভিচকে হারিয়ে পুরুষ এককের শিরোপা জিতে নিয়েছেন রাফায়েল নাদাল। সেই নাদাল, যিনি এর আগে ১২ বার শিরোপা উৎসব করেছেন রোঁলা গাঁরোয়। একচ্ছত্র আধিপত্যে যিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন রোঁলা গাঁরোর একক রাজা হিসেবে। 

তবে মহিলা একক ঠিকই খুঁজে নিয়েছে নতুন রানি। পুরো টেনিস বিশ্বকে চমকে দিয়ে মহিলা এককের শিরোপা জিতে নিয়েছেন ইগা সিওনতেক। পোল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে গ্র্যান্ড স্ল্যাম (সিনিয়র ক্যাটাগরিতে) জয়ের রেকর্ড গড়ে বিশ্বে ফেলে দিয়েছেন হইচই।

শুধু ফ্রেঞ্চ ওপেন নয়। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, উইম্বলডন, ইউএস ওপেনসহ টেনিসের কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপাই কখনো জিততে পারেনি পোল্যান্ডের কোনো খেলোয়াড়। দেশের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে সেই অতৃপ্তি দূর করলেন ইগা সিওনতেক। সেটাও মাত্র ১৯ বছর বয়সে। এমন কীর্তির পর সুন্দরী এই তরুণীকে নিয়ে হইচই পড়েছে দেশজুড়ে।

সোরগোল, আলোচনা পুরো টেনিস দুনিয়াতেই। তবে তার দেশ পোল্যান্ডে আবেগের রঙটা বাঁধভাঙা। দেশের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সমাজের অতি নিম্নস্তরের মানুষ, সবাই ইগা সিওনতেকের এ অর্জনে মাতোয়ারা। ১০ অক্টোবর ফাইনালে সোফিয়া কেনিনকে ৬-৪, ৬-১ গেমে হারিয়ে ইগা সিওনতেকের শিরোপা জয়ের পর থেকেই পোল্যান্ডজুড়ে চলছে উৎসব।

চোখে আনন্দের জল, মুখে আনন্দের হাসি, অন্তরে আনন্দ-আবেগের প্রবল স্রোত- এমন অবস্থায় ১৯ বছরের তরুণী গুছিয়ে কথা বলেন কি করে! শিরোপার প্রতিক্রিয়া জানানোর পরিবর্তে তিনি তাই মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে ক্ষমা চাইলেন ঠিকভাবে কথা বলতে না পারার জন্য! আর বললেন, দেশ পোল্যান্ডে ফেরার পর সব কিছুই হবে। সব কিছু মানে, আনন্দ-উল্লাস, উদযাপন। সেটা হয়েছেও পোল্যান্ডে। উৎসব চলছে এখনো।

এবার আসা যাক নাদালের কথায়। রোঁলা গাঁরোর লাল দুর্গকে অনেক আগেই নিজের দুর্গ বানিয়ে ফেলেছেন এই স্প্যানিয়ার্ড। শিরোপা জয়, ম্যাচ জয়- রোঁলা গাঁরোর এসব রেকর্ডই অনেক দিন ধরে নাদালের দখলে। বছর বছর নিজের সেই রেকর্ডগুলোকেই ভেঙে নতুন করে গড়ে চলেছেন নাদাল। সেই ধারাবাহিকতায় ১১ অক্টোবর যেমন জিতলেন ফ্রেঞ্চ ওপেনের ১৩তম শিরোপা। সব মিলে যেটা তার ২০তম গ্র্যান্ডস্ল্যাম শিরোপা। মানে, ১১ অক্টোবরের ফাইনালে নোভাক জোকোভিচকে হারিয়ে নাদাল ভাগ বসিয়েছেন সুইজারল্যান্ডের কিংবদন্তি রজার ফেদেরারের সর্বোচ্চ ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ডে। 

এখন ৩৯ বছর বয়সী ফেদেরার ও ৩৪ বছর বয়সী নাদাল, দু’জনের নামের পাশেই সমান ২০টি করে গ্র্যান্ড স্ল্যাম।

ওই দিনের শিরোপার পথে আরো একটি অনন্য মাইলফলক স্পর্শ করেছেন নাদাল। রোঁলা গাঁরোয় ইতিহাসের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে গড়েছেন ১০০তম জয়ের রেকর্ড। ফ্রেঞ্চ ওপেনে নাদাল এই ১৩ শিরোপা জিতলেন ৩টি স্লটে। ২০০৫ থেকে ২০০৮, টানা ৪ বছর রোঁলা গাঁরোয় শিরোপা জেতেন নাদাল। এরপর ২০০৯ সালে বঞ্চিত। ২০১৭ থেকে ২০২০, আবার টানা ৪ বছর তিনি শিরোপা উৎসব করলেন রোঁলা গাঁরোর লাল দুর্গে।

রোঁলা গাঁরোয় ৩৪ বছর বয়সী নাদালের এই রাজত্ব আরও কয় বছর চলে সেটাই এখন দেখার। পরিশেষে ফ্রেঞ্চ ওপেনের নতুন রাজা-রানিকে প্রাণঢালা অভিনন্দন।


মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh